অবশেষে বন্ধ হয়ে গেল পাবনা সুগার মিল, শ্রমিক কর্মচারীর দফায় দফায় বিক্ষোভ।

অবশেষে বন্ধ হয়ে গেল পাবনা সুগার মিল, শ্রমিক কর্মচারীর দফায় দফায় বিক্ষোভ।

ঈশ্বরদী প্রতিনিধিঃ ঈশ্বরদীতে অবস্থিত পাবনা সুগার মিল আনুষ্ঠানিকভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
পাবনা সুগার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফ উদ্দিন আহম্মেদ এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, বুধবার (২ ডিসেম্বর) শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে পাবনা সুগার মিলসহ ৬টি মিল বন্ধের চিঠি প্রেরণ করা হয়েছে। এদিকে মিল বন্ধের ঘোষণার প্রতিবাদে শ্রমিক-কর্মচারী ও আখ চাষীরা দফায় দফায় বিক্ষোভ করেন।

অবশেষে বন্ধ হয়ে গেল পাবনা সুগার মিল, শ্রমিক কর্মচারীর দফায় দফায় বিক্ষোভ।এসময় বিুক্ষুব্ধ শ্রমিক-কর্মচারী ঈশ্বরদী-পাবনা মহাসড়ক অবরোধের চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের বাঁধা দেয়।
জানা যায়, শিল্প মন্ত্রণালয়ের ১১৬ নং স্মারকের এক চিঠিতে বলা হয়, চিনি আহরণের হার,আখের জমি, মিলের অবস্থা/ লোকসান ও রক্ষনাবেক্ষন ব্যয় বিবেচনায় চলতি আখ মাড়াই মৌসুমে ১৫টি চিনিকলের মধ্যে অধিকতর বিবেচনায় ৯টি চিনিকলে উৎপাদন পরিচালনা করা ও অবশিষ্ট ৬টি মিলে আখ মাড়াই না করার প্রস্তাব করা হলো।
আখ মাড়াই স্থগিতকৃত চিনিকলগুলোর মধ্যে রয়েছে, পাবনা সুগার মিল, কুষ্টিয়া সুগার মিল,পঞ্চগড় সুগার মিল, শ্যামপুর সুগার মিল, রংপুর সুগার মিল ও সেতাবগ্ঞ্জ সুগার মিল।
ওই চিঠিতে আরও বলা হয়, যেসব মিলে চলতি মৌসুমে আখ মাড়াই করা হবেনা সেসব এলাকায় উৎপাদিত ও কৃষকের সরবরাহকৃত আখ নিকটস্থ চালু চিনিকলে পরিবহন করে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।
উৎপাদন স্থগিতকৃত মিল হতে কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীকে চালুকৃত মিলে সংযুক্ত/বদলি পূর্বক সমন্বয় করা হবে।

পাবনা সুগার মিল বন্ধের প্রতিবাদে বুধবার সকালে মিলের শ্রমিক-কর্মচারী ও আখচাষীরা দফায় দফায় বিক্ষোভ করেন। এসময় দাঙ্গা পুলিশসহ বিপুল সংখ্যক পুলিশ মিল গেটে অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে মহাসড়ক অবরোধ করতে গেলে পুলিশ ও বিক্ষোভকারীরা মূখোমুখি হয়। এসময় পুলিশের পক্ষ থেকে শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালনের জন্য অনুরোধ জানানো হলে বিক্ষোভকারীরা মিলগেটে অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন শ্লোগান দেয়। এসময় মিল চালুর রাখার দাবি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন শ্রমিক লীগের আঞ্চলিক শাখার সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেন, পাবনা চিনিকল শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি সাজেদুল ইসলাম শাহিন, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান উজ্জল, শ্রমিক নেতা জাহিদুল ইসলাম জাহিদ। সভাপতিত্ব করেন আখচাষী ফেডারেশনের সভাপতি শাজাহান আলী বাদশা।

বাংলাদেশ খাদ্য ও চিনি শিল্প করপোরেশনের চেয়ারম্যান সনৎ কুমার সাহা বলেন, পাবনা সুগার মিলসহ ৬টি মিল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। করপোরেশন থেকে এই সংক্রান্ত একটি চিঠি শিল্প মন্ত্রণালয়কে বেশ কিছুদিন আগেই দেয়া হয়েছিল। মন্ত্রণালয় এতে সম্মতি দিয়ে মিল ৬টি বন্ধ ঘোষণা করেন।

উলে­খ্য, পাবনা সুগার মিল ক্রমাগত লোকসানের কারণে বন্ধ হতে যাচ্ছে এমন খবর বেশ কিছু দিন ধরে শোনা যাচ্ছিল। চার শত কোটি টাকারও বেশি লোকসানে পড়ায় চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশন মিলটি বন্ধে নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

পূর্ববর্তী খবরনওগাঁয় ফরেস্টার এর বদলী আদেশ স্থগিতের দাবিতে মানববন্ধন।
পরবর্তী খবরদিতীয়ধাপে পৌরসভার নির্বাচনের তফসীল ঘোষনা। ১৬ জানুয়ারি ঈশ্বরদী পৌসভার ভোট।

Leave a Reply