অর্থ আত্মসাতের মামলায় অভিযোগপত্র জমা দিলেন দুদক…..

পাবনাঃ- পাবনার সাঁথিয়া পৌর মেয়র মিরাজুল ইসলাম প্রামাণিকের বিরুদ্ধে উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রবিবার দুদক পাবনা আঞ্চলিক কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আতিকুর রহমান আদালতে এ মামলার চার্জশীট জমা দেন।

আতিকুর রহমান জানান, সাঁথিয়া পৌর মেয়র মিরাজুল ইসলাম প্রামাণিক অবৈধভাবে ক্ষমতার অপব্যবহার করে একক সিদ্ধান্তে গুরুত্বপূর্ণ ১৯টি পৌরসভা অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় সাঁথিয়া পৌরসভায় বাস্তবায়নাধীন কাজের বিল পরিশোধের জন্য পরিচালিত সোনালী ব্যাংক সাঁথিয়া শাখার চলতি হিসাব নং-১৫৪৪ হতে ২৯ আগস্ট ২০১১ থেকে ২৮ জুন ২০১৭ তারিখ সময়ের মধ্যে ৫ কোটি ৭৫ লাখ ৯৩ হাজার ৯৮৪ কোটি টাকা ঋণের নামে উত্তোলন করেছেন।

সংশ্লিষ্ট রেকর্ড পর্যালোচনায় দেখা গেছে, মেয়র মিরাজুল ইসলাম নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কথিত ঋণ হিসেবে উত্তোলনকৃত অর্থের বিপরীতে ৪ কোটি ৪৭ লাখ ৫ হাজার টাকা ফেরত দিয়ে, অবশিষ্ট ১ কোটি ২৮ লাখ ৮৮ হাজার ৯৮৪ টাকা আত্মসাৎ করেন।

এ অভিযোগে, গত ৬ আগস্ট ২০১৯ তারিখে তার বিরুদ্ধে দন্ডবিধির ৪০৯ এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলা দায়ের করে দুদক।

দুদক কর্মকর্তা আতিকুর রহমান আরও জানান, মামলা দায়েরের পর গত ১ এপ্রিল ২০১৯ হতে ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখের মধ্যে বিভিন্ন সময় উক্ত ব্যাঙ্ক হিসাবে আত্মসাৎ করা অর্থ ফেরত বা জমা দেয়ায় মেয়র মিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে অপরাধের প্রমাণ মিলেছে।

এ সংক্রান্ত সাক্ষ্য প্রমানাদি দুদক প্রধান কার্যালয়ে প্রেরণ করা হলে এ বিষয়ে আদালতে চার্জশীট দাখিলের অনুমোদন দেয়া হয়।

দুদক প্রধান কার্যালয়ের নির্দেশে গত ৬ ডিসেম্বর তারিখে এ মামলায় মেয়র মিরাজুলের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট জমা দেয়া হয়েছে।

অর্থ আত্মসাতের এ মামলায় সাঁথিয়া পৌর মেয়র মিরাজুল ইসলাম প্রামাণিক বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে জামিনে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

পূর্ববর্তী খবরগৃহবধু হত্যার প্রতিবাদে ও জড়িতদের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত।
পরবর্তী খবরপাবনা সুগার মিলের শ্রমিক-কর্মচারীরা বিক্ষোভ করে।

Leave a Reply