ঈশ্বরদীতে পাবনা প্রেসক্লাব সম্পাদক আসাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

ঈশ্বরদী প্রতিনিধিঃ ঈশ্বরদীতে পাবনা প্রেসক্লাব সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদের বিরুদ্ধে সাবেক এমপির ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়েরের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন ঈশ্বরদীর গণমাধ্যমকর্মীরা।

ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবের আয়োজনে বুধবার (১১ আগস্ট) সকাল ১১টায় প্রেসক্লাবের সামনে ঘন্টাব্যাপী এই মানববন্ধনে ঈশ্বরদীতে কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদকর্মীরা অংশ নেন।

ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবের সভাপতি সহকারী অধ্যাপক স্বপন কুমার কুন্ডুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক আব্দুল বাতেনের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন বীরমুক্তিযোদ্ধা ও সাপ্তাহিক চেতনায় ঈশ্বরদীর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ফজলুর রহমান ফান্টু, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি কে এম আবুল বাসার, প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম, প্রেসক্লাবের সহ-সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম বিশ্বাস, প্রেসক্লাবের সহ-সাধারণ সম্পাদক ও সময়ের ইতিহাস পত্রিকার সম্পাদক শেখ মহসীন, ঈশ্বরদী সাংবাদিক কল্যাণ সংস্থার সভাপতি আসাদুজ্জামান আসিফ প্রমূখ।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সাবেক সহ-সভাপতি এম এ কাদের, সাপ্তাহিক হ্যালো ঈশ্বরদীর সম্পাদক সুমার খান, প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ স্বকাল বাংলার সম্পাদক মিশুক প্রধান, দপ্তর সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আতাউর রহমান বাবলু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলমাস আলী, ক্রীড়া সম্পাদক আমিরুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য আক্তারুজ্জামান মিরু, প্রেসক্লাবের সদস্য শহিদুল্লাহ খান, সমকাল সুহৃদ সমাবেশের সভাপতি আর কে বাবু, সাধারণ সম্পাদক মাসুদুল ইসলাম মাসুদ, ঈশ্বরদী সাংবাদিক কল্যাণ সংস্থার সহ-সভাপতি গোপাল অধিকারী, সবুজ দেওয়ান, সহ সাধারন সম্পাদক প্রিন্স তুহিন, সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম সবুজ, কোষাধ্যক্ষ খালেদ মাহমুদ সুজন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইয়াছিন আলী শেখ, সমাজ কল্যান সম্পাদক শিশির মাহমুদ, নির্বাহী সদস্য আফজাল হোসেন খান, মোঃ উজ্জল প্রধান।

অন্যান্য সদস্য হারুন অর রশিদ খোকন, আওলাদ হোসেন, শিহাব সুমন, হাসান ইসলাম, খায়রুল বাসার মিঠু, ফারাবি বিন সাকিব, সাঈদ হাসান লিমন, রাকিব বিশ্বাস, জিয়াউল ইসলাম, পাবনা মেইল টোয়েন্টিফোরের ঈশ্বরদী প্রতিবেদক অপূর্ব চৌধুরী, শরিফুল ইসলাম পাপ্পু, অপূর্ব চৌধুরী, পাপ্পু, মুত্তাকিন, রাসেল আলী, রাকিবুল ইসলাম রাকিব, তানজীদ রহমান, আলিফ হাসান, আনন্দ টিভির প্রতিনিধি বায়েজিদ বোস্তামি পলাশ, কলকাতা টিভি প্রতিনিধি কল্লোল,জীবন,সাব্বির আহম্মেদ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রেসক্লাব সভাপতি সহকারী অধ্যাপক স্বপন কুমার কুন্ডু বলেন, মামলার বাদী সাবেক সংসদ সদস্য আজিজুল হক আরজু রাজনৈতিক পরিচয় ব্যবহার করে সরকারী জমি দখল, চরমপন্থিদের মদদ দিয়ে নগরবাড়ি ঘাট এলাকায় চাঁদাবাজীর নেপথ্যের নায়ক। তার বিরুদ্ধে যে কোন ধরনের সংবাদ করতে গেলেই তিনি সংশ্লিষ্ট গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের সাথে অশোভন আচরণ করেন। অনৈতিক প্রস্তাবের মাধ্যমে সংবাদ বন্ধ করার চেষ্টা করেন, তাতে রাজি না হলে মামলা হামলারও ভয় দেখান। তাঁর সকল অপকর্ম পাবনাবাসী জানেন। মিথ্যা এ মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।
বীরমুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান ফান্টু বলেন, এটি মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা। সাবেক সাংসদ নিজের অপকর্ম ঢাকতে মিথ্যা মামলা করেছেন। এ মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। একই সঙ্গে সাংবাদিকদের একটি কথা বলতে চাই, সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। কারণ ক্ষমতার অপব্যবহারকারী দূর্নীতিবাজ ও ষড়যন্ত্রকারীরা সাংবাদিকদের সুযোগ পেলেই ক্ষতি করার চেষ্টা করবে। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে এদের মোকাবেলা করতে হবে।

সহ-সভাপতি কে এম আবুল বাসার বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপব্যবহার করে অসত্য অভিযোগ এনে পাবনা প্রেসক্লাব সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদ’র বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন সাবেক সাংসদ আজিজুল হক আরজু।
এতে স্বাধীন সাংবাদিকতা ও মত প্রকাশের স্বাধিনতার বিরুদ্ধে তিনি অবস্থান নিয়েছেন বলে আমরা মনে করি। অবিলম্বে এ মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক আব্দুল বাতেন বলেন, মিথ্যা মামলা দায়ের করে একজন সাবেক সংসদ সদস্য সাংবাদিকদের হয়রানি করার চেষ্টা করছেন তা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমরা ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। একই সঙ্গে মিথ্যা মামলা দ্রুত প্রত্যাহারের জোর দাবি জানাচ্ছি।

প্রসঙ্গত, গত ৮ মার্চ জেলার বেড়া উপজেলার নাটিয়াবাড়িতে সাবেক এমপি আরজুর ভাতিজা পরিচয় দেয়া এক ব্যাক্তির বাড়িতে অস্ত্রের কারখানার সন্ধান পাওয়ার কথা জানান পুলিশ। এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশ হলে ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি এ মামলাটি দায়ের করেন।

পূর্ববর্তী খবরস্বর্ণের দোকানে ডাকাতির অভিযোগে ওসি সহ ৬ পুলিশ সদস্য গ্রেফতার
পরবর্তী খবরনিষিদ্ধ স্কারলেট জোহানসন

Leave a Reply