ঈশ্বরদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় আবারও ২ জন নিহত, আহত ৪

ঈশ্বরদী পাবনা মহাসড়কের কালিকাপুর বাজারের নিকটে দিকশাইল মোড়ে সিএনজি ও গরুটানা ভটভটির মূখোমূখি সংঘর্ষে ২ জন নিহত হয়েছে।

রবিবার (৯ জানুয়ারী) রাত সাড়ে ৮ টার দিকে ঈশ্বরদী-পাবনা মহাসড়কে এই দূর্ঘটনা ঘটে।নিহতদের মধ্যে রয়েছে সিএনজি’র যাত্রী নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার শিবপুর গ্রামের মোতালেব হোসেনের পুত্র বাবলু(২৫)এবং অপরজন সিএনজি’র চালক পরাগ। তবে পরাগের বিস্তারিত ঠিকানা এখনও জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শী পল্লী চিকিৎসক তফিজ উদ্দিনসহ স্থানীয়রা জানান,ঘটনার সময় পাবনা দিক থেকে যাত্রী নিয়ে সিএনজিটি দাশুড়িয়ার দিকে আসতে ছিলো। আর দাশুড়িয়ার দিক থেকে শ্যালোর ইঞ্জিন চালিত গরুটানা ভটভটি গাড়িটি দ্রুতগতিতে পাবনার দিকে যাচ্ছিল। এই সময় ঘটনাস্থল কালিকাপুর দিকশাইল মোড়ে সিএনজি ও ভটভটির মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজনের মৃত্যু হয়। আর আহতদের ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদস্যরা উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

দূর্ঘটনায় গুরুতর আহতরা হলেন,ঈশ্বরদী পৌরসভার আমবাগান এলাকার মোছাঃ জোসনা খাতুনের মাতা ডলি বেগম(৬০),একি এলাকার মৃত হামিদের স্ত্রী মোছাঃ আনোয়ারা(৫৫),নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার গরমাটি এলাকার মোনসের মিস্রির ছেলে মোঃ শাহিন(২৭),একি উপজেলার আমিন উদ্দিনের ছেলে মহররম(৫০)।

আহতদের মধ্যে ডলি বেগম ও শাহিনের অবস্থা আসংকাজনক থাকায় রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে ও আহত মহরম কে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য স্থানান্তর করেন।

ঈশ্বরদীর পাকশী হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল বাশার জানান,রাতে পাবনা হতে আসা একটি সিএনজি’র সাথে গরু টানা ভটভটির মূখোমূখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে যাত্রী বাবুল এবং সিএনজি চালক পরাগের ঘটনাস্থলেই মূত্যু হয়। নিহতদের লাশ হাইওয়ে থানায় রাখা হয়েছে। ভটভটি ও সিএনজি আটক করা হয়েছে। তবে ভটভটি চালক পলাতক বলে তিনি জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত:এরআগে গত বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারী) কালিকাপুরে সংঘঠিত সড়ক দুর্ঘটনায় মা ও ছেলে নিহত হয়।

পূর্ববর্তী খবরমার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী: মরার জন্য আর কোনো সেনা আফগানিস্তানে যাবে না
পরবর্তী খবরসিনেমার দৃশ্যে কিংবা গল্পে নয়, বাস্তবেই মা হচ্ছেন পরীমণি

Leave a Reply