এশিয়ান টোব্যাকোর বিনিয়োগ হলে ঈশ্বরদী ইপিজেডে জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকি- ভয়েস।

ছবি:- সংগৃহীত

অনলাইন নিউজঃ দেশে আধুনিক সিগারেট এবং তামাক প্রসেসিং প্ল্যান্ট স্থাপন করতে এশিয়ান টোব্যাকো (প্রাইভেট) লিমিটেডের বিনিয়োগ জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকিস্বরূপ বলে মনে করছে মানবাধিকার সংস্থা ভয়েসেস ইন্টারেক্টিভ চয়েস অ্যান্ড এমপাওয়ারমেন্ট (ভয়েস)।

বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৩ ডিসেম্বর ঈশ্বরদী রফতানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চলে আধুনিক সিগারেট এবং তামাক প্রসেসিং প্ল্যান্ট স্থাপনের জন্য বাংলাদেশ রফতানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেপজা) সাথে চুক্তি করেছেন এশিয়ান টোব্যাকো (প্রাইভেট) লিমিটেড। চুক্তি অনুযায়ী কোম্পানিটি দেশের তামাক খাতে প্রায় ১৭ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে। যা ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে তামাকমুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টিভঙ্গি এবং ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি অর্জনে প্রতিশ্রুতি বিরোধী।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও উল্লেখ করা হয়, এশিয়ার টোব্যাকো ওই কারখানা থেকে প্রতি বছর ১১৯ কোটি ৫০ লাখ সিগার অ্যান্ড সিগারেটস স্টিক, ফিল্টার স্টিক, সিগারেটের প্যাকেট, সিগারেটের বক্স প্যাকেট এবং ৭৩ হাজার ২০৫ কেজি টোব্যাকো উৎপাদন করবে। যা নিঃসন্দেহে তামাকজনিত রোগের কারণে মৃত্যু এবং অসুস্থতার সংখ্যা বাড়িয়ে তুলবে। যদিও সরকার এখন প্রতি বছর তামাকজনিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত রোগীদের জন্য ৩০ হাজার ৫৬০ কোটি টাকা ব্যয় করে।

ভয়েস-এর নির্বাহী পরিচালক আহমেদ স্বপন মাহমুদ জানান, একটি তামাক কোম্পানিকে দেশে নতুন কারখানা স্থাপনের অনুমতি দেওয়ার অর্থ প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টিভঙ্গির সাথে সরাসরি বিরোধিতা করা এবং টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য অর্জনের লক্ষ্যের সাথে বিরোধপূর্ণ। এভাবে চলতে থাকলে ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত দেশ গড়ার স্বপ্ন শুধু স্বপ্নই থাকবে।

সত্যের সকাল- উজ্জল হোসেন

পূর্ববর্তী খবরশ্রীমঙ্গলে শীতার্ত অসহায়দের কম্বল জরিয়ে দেন ডিসি।
পরবর্তী খবরআদমদীঘি উপজেলা আওয়ামী লীগের আংশিক কমিটি ঘোষণা।

Leave a Reply