33 C
Dhaka
Sunday, May 28, 2023

করোনা বা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ কারীদের শেষ ভরসা তাকওয়ার সেচ্ছাসেবীরা।

যশোর জেলার মণিরামপুরে করোনা আক্রান্ত হয়ে বা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করলে তাদের দাফন বা সৎকারের দায়িত্ব নিজেদের কাধে তুলে নেন ”তাকওয়া ফাউন্ডেশন এর স্বেচ্ছাসেবীরা। করোনা আক্রান্ত বা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণকারীদের স্বজনরা যখন দাফন বা সৎকারে পিছিয়ে যান তখন এগিয়ে আসেন তাকওয়া ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীরা। জানা যায়, সংগঠনটিতে মোট ১৬জন সদস্য যার মধ্যে ৪জন নারীও আছেন। করোনা আক্রান্ত বা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণকারী ব্যক্তিকে সম্পূর্ণ বিনা খরচে ধর্মিয় রীতিনীতি মেনে দাফন করেন তারা।

সংগঠনের যশোর জেলার টিম সমন্বয়কারী নাসিম উদ্দিন বলেন, “আমাদের কাছে যখনই ফোন আসে যে, কেউ করোনা আক্রান্ত বা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেছে আমরা নিজেদের সকল প্রকার স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ে কাফন-দাফনের ব্যবস্থা সম্পন্ন করি। আর এর বিনিময়ে কখনো কারোর থেকে কোনো কিছু গ্রহন করিনি।

মনিরামপুরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ও করোনার উপসর্গ নিয়ে এ পর্যন্ত প্রায় দেড় শতাধিক নারী-পুরুষের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদেহের সৎকার নিয়ে স্বজনদের মধ্যে দেখা দেয় করোনা আতঙ্ক। ফলে মৃতদেহ সৎকার নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েন পরিবারের লোকজনসহ স্বজনরা। আর এ সময় মানবতার সেবায় এগিয়ে আসেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন তাকওয়া ফাউন্ডেশনের সদস্যরা। তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মৃতদেহ সৎকার করেন। এবং ভবিষ্যৎতেও এমন কাজে তারা অংশগ্রহণ করবেন বলে জানান সংগঠনটির প্রধান সমন্বয়কারী।

দৈনিক সত্যের সকাল/মুক্তা (মনিরামপুর)

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

Leave a Reply

লেখক থেকে আরো