খুলনা দৈনিক ব্যবহৃত সকল পণ্যের দাম বৃদ্ধি

স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে সব পণ্য বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের। ফলে বিপাকে পড়েছেন শহরের নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষ।

গত চারদিন ধরে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বেড়েছে। কাঁচা বাজারের প্রতিটি দ্রব্যের দাম ১০-১৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে।

খুচরা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেগুন প্রতিকেজি ৮০ টাকা। পটল ৪০, ঝিঙ্গা ৬০, কুশি ৫৫, কাকরোল ৬০, বরবটি ৬৫, কঁচুরমুখী ৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অথচ একসপ্তাহ আগেও বেগুন ৪০, পটল ৩০, ঝিঙ্গা ৫০, কুশি ৪০, কাকরোল ৪৫, বরবটি ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

লকডাউন এর কারণে পরিবহন স্বল্পতার কারণে পাইকারি বাজারে আগের মতো কাঁচামাল আসছে না। যার ফলে পণ্যের দাম বেড়েছে। এছাড়া সোমবার (১লা জুলাই ) শুরু হচ্ছে দেশব্যাপী কঠোর লকডাউন। এটা জেনে শহরের অধিকাংশ ক্রেতা হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন পণ্য ক্রয় করতে। ফলে বাজারে পণ্যের দাম বেড়েছে। আওতামুক্ত রাখা হলেও লকডাউনের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে খুলনার কাঁচা বাজারে।

স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে সব পণ্য বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের। ফলে বিপাকে পড়েছেন শহরের নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষ।

গত চারদিন ধরে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বেড়েছে। কাঁচা বাজারের প্রতিটি দ্রব্যের দাম ১০-১৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে।

খুচরা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেগুন প্রতিকেজি ৮০ টাকা। পটল ৪০, ঝিঙ্গা ৬০, কুশি ৫৫, কাকরোল ৬০, বরবটি ৬৫, কঁচুরমুখী ৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অথচ একসপ্তাহ আগেও বেগুন ৪০, পটল ৩০, ঝিঙ্গা ৫০, কুশি ৪০, কাকরোল ৪৫, বরবটি ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।
লকডাউন এর কারণে পরিবহন স্বল্পতার কারণে পাইকারি বাজারে আগের মতো কাঁচামাল আসছে না। যার ফলে পণ্যের দাম বেড়েছে। এছাড়া সোমবার (১লা জুলাই ) শুরু হচ্ছে দেশব্যাপী কঠোর লকডাউন। এটা জেনে শহরের অধিকাংশ ক্রেতা হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন পণ্য ক্রয় করতে। ফলে বাজারে পণ্যের দাম বেড়েছে।

সত্যের সকাল / আহাদ/খুলনা

পূর্ববর্তী খবরইউরোপ সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য; তারা নির্লজ্জভাবে মানবাধিকারের কথা বলে: নেতা
পরবর্তী খবরজ্বীনের বাদশার খপ্পরে পড়ে সর্বশান্ত গৃহবধূ!

Leave a Reply