চট্টগ্রামে ৩টি শিল্প পার্ক স্থাপন করবে বিসিক।

চট্টগ্রামে ৩টি শিল্প পার্ক স্থাপন করবে বিসিক।

শিল্পোন্নত বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ, লবণ শিল্প ও স্থানীয় নারী উদ্যোক্তাদের জন্য চট্টগ্রামে আরো তিনটি শিল্প পার্ক স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)।

বিসিকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এই লক্ষ্যে সোমবার চট্টগ্রামের বোয়ালখালীর কর্ণফুলী নদীর তীরে চরণদ্বীপে ১’শ একর জায়গার ওপর লবণ শিল্পের জন্য আলাদা একটি বিসিক লবণ শিল্প পার্ক, স্থানীয় নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বিসিক নারী উদ্যোক্তা শিল্প পার্ক ও পটিয়ায় ৫’শ একর জমিতে বিসিক মাল্টিসেক্টরাল শিল্প পার্ক স্থাপনে বিসিক চেয়ারম্যান সম্ভাব্য জায়গা পরিদর্শন করেন।

এর আগে গত ৬ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনের সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরীর সাথে হোটেল রেডিসনে নারী উদ্যোক্তাদের শিল্প পার্ক, লবণ শিল্প পার্ক ও বিসিক মাল্টিসেক্টরাল শিল্প পার্ক স্থাপনের বিষয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় সামশুল হক চৌধুরী এই নতুন তিনটি শিল্প পার্ক স্থাপনের বিষয়ে বিসিক কর্তৃপক্ষকে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

চট্টগ্রামে বর্তমানে বিসিকরে পাঁচটি শিল্পনগরী রয়েছে। এগুলো হলো- বিসিক শিল্পনগরী ফৌজদারহাট, বিসিক শিল্পনগরী ষোলশহর, বিসিক শিল্পনগরী কালুরঘাট, বিসিক শিল্পনগরী পটিয়া এবং বিসিক শিল্পনগরী মীরসরাই।এছাড়াও চট্টগ্রামের রাউজানে ৩৫ একর জায়গায় আরো একটি শিল্পপার্ক নির্মাণাধীন।

চট্টগ্রামের বিদ্যমান পাঁচটি শিল্পনগরীর মোট আয়তন প্রায় ১৫০.৪১ একর। উৎপাদনরত শিল্প ইউনিটের সংখ্যা ১৯৫টি যার মধ্যে ৮৫টি শিল্প ইউনিট রপ্তানিমুখী। বর্তমানে কর্মসংস্থান হয়েছে প্রায় এক লাখ ৪৪ হাজার ৩৬০ জন নারী-পুরুষের।

এই পাঁচচি বিসিক শিল্পনগরীতে হালকা প্রকৌশল যন্ত্রাংশ, রেডিমেট গার্মেন্টস, সিরামিক ও নন-মেটালিক পণ্য, কেমিক্যাল অ্যান্ড এলইডি পণ্য, প্যাকেজিং, কাঠ ও বনজ, খাদ্য ও খাদ্যজাত, চামড়া, রাবার ও রাবারজাত পণ্য উৎপাদিত হয়ে থাকে।

লবণ শিল্পের জন্য বিসিক লবণ শিল্প পার্ক, নারী উদ্যোক্তাদের বিসিক নারী উদ্যোক্তা শিল্প পার্ক ও বিসিক মাল্টিসেক্টরাল শিল্পপার্কের স্থাপন সম্ভব হলে প্রায় পাঁচ লাখ নারী পুরুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

পূর্ববর্তী খবরআগামী মাসের শুরুতেই করোনার টিকা পাবে বাংলাদেশ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
পরবর্তী খবরতৃতীয় দেশ হিসেবে ফাইজারের ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে কানাডা

Leave a Reply