চৌদ্দগ্রামে বিষপানে গৃহবধূর আত্মহত্যা

চৌদ্দগ্রাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি: কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বখাটের নির্যাতন সইতে না পেরে তানজিনা আক্তার রুমি (২৫) নামে এক সন্তানের জননী বিষপানে আত্মহত্যা চেষ্টার পর চিকিৎসাধিন অবস্থায় রোববার রাতে তার মৃত্যু হয়। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে। নিহত তানজিনা আক্তার উপজেলার মুন্সীরহাট ইউনিয়নের পেচাইমুড়ি গ্রামের সৌদি প্রবাসী আলাউদ্দিনের স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার সন্ধ্যায় তানজিনা আক্তার রুমি পরিবারের সদস্যদের আড়ালে বিষপান করে অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন তাকে প্রথমে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। কর্তব্যরত চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দাউদকান্দি নামক স্থানে পৌঁছলে তানজিনার মৃত্যু হয়।

নিহত গৃহবধূ তানজিনার শ্বশুর আবুল কালাম জানান, একই গ্রামের মনু মিয়ার ছেলে আনোয়ার হোসেন দীর্ঘদিন যাবৎ তার পুত্রবধূকে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। এ বিষয়ে এলাকায় একাধিকবার শালিশ দরবার হলে শালিশদারগণ আনোয়ারকে সতর্ক করে। এতে আনোয়ার ক্ষীপ্ত হয়ে কৌশলে গৃহবধূ তানজিনার ছবি মোবাইল ফোনে ধারণ করে। পরে ওই ছবিগুলোকে অশ্লীল ছবিতে রূপান্তর করে ইমুর মাধ্যমে প্রবাসে থাকা তানজিনার স্বামী আলাউদ্দীনের নিকট পাঠায়। এতে গৃহবধূ তানজিনার সংসারে অশান্তি নেমে আসে এবং মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে। এসব ছবি দেখে স্বামীসহ তার আত্মীয়-স্বজন ও পাড়াপ্রতিবেশীর নানান কথায় অপমান সইতে না পেরে তানজিনা আক্তার রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় পরিবারের সদস্যদের অগোচরে বিষপান করে। এক পর্যায়ে গৃহবধূ তানজিনা অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এ বিষযে চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শুভ রঞ্জণ চাকমা জানান, সংবাদ পেয়ে গৃহবধূ তানজিনা আক্তারের লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পূর্ববর্তী খবরখুলনায় নির্বাচনী সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ৭
পরবর্তী খবরলোহাগড়ায় গৃহবধূ আত্মহত্যা প্ররোচণা মামলায় স্বামী আটক

Leave a Reply