তামিমা ফিরতে চাইলে আপত্তি নেই রাকিবের

তামিমা তাম্মি ফিরতে চাইলে আপত্তি নেই, তাকে গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ী রাবিব হাসান। আজ আদালত প্রাঙ্গনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। তাকে প্রশ্ন করা হয় তামিমা যদি ফিরে আসতে চায় তাকে কি আপনি গ্রহণ করবেন? জবাবে রাকিব বলেন, তামিমা আইনত এখনো আমার স্ত্রী। সে যদি ফিরতে চায় আমার পক্ষ থেকে কোনো আপত্তি নেই।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘পিবিআই’র সুষ্ঠু তদন্তে বেরিয়েছে এসেছে প্রকৃত ঘটনা। নাসির এবং আমার স্ত্রী তামিমা অবৈধভাবে বিয়ে করেছে। তামিমা যদি সংসার করতে চায়, সে বিষয়টিও আমি বিবেচনায় নেবো। এ বিষয়ে আমি আমার আইনজীবীর সঙ্গে পরামর্শ করবো।
আমার দায়ের করা মামলায় যেহেতু আদালতে চার্জশিট জমা হয়েছে, সেহেতু বিচারিক কার্যক্রমের মধ্যে দিয়েই আমি এমনটা চাইবো। ’ 

এদিকে, ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও কেবিন ক্রু তামিমা সুলতানা তাম্মীসহ তিনজনকে আদালতে হাজির হতে সমন জারি করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসীমের আদালত এ সমন জারি করেন।

এর আগে, নাসির ও তামিমার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আবেদন করেন মামলার বাদী ব্যবসায়ী রাকিব হাসান।

রাকিবের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান জানান, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিআইবি) একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদন আমলে নিয়ে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করার আবেদন করেছি।  
 

আজ নাসির ও তামিমার বিয়ে অবৈধ বলে প্রতিবেদন দাখিল করেছে তদন্তকারী সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পিবিআইয়ের তদন্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান এ প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি বিয়ে করেন নাসির ও তামিমা।

এরপরই নাসিরের বিরুদ্ধে অপরের স্ত্রীকে বিয়ে করার অভিযোগ উঠে। ২৪ ফেব্রুয়ারি নাসির-তামিমার বিরুদ্ধে মামলা করেন রাকিব। 

তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী, তামিমা রাকিবকে তালাক দেননি। আইনগতভাবে রাকিব তালাকের কোনো নোটিশও পাননি। তামিমা উল্টো জালিয়াতি করে তালাকের নোটিশ তৈরি করে তা বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশ করেছেন। যথাযথ প্রক্রিয়ায় তালাক না দেওয়ার ফলে তামিমা তাম্মী এখনও রাকিবের স্ত্রী হিসেবে বহাল রয়েছেন। দেশের ধর্মীয় বিধিবিধান ও আইন অনুযায়ী এক স্বামীকে তালাক না দিয়ে অন্য কাউকে বিয়ে করা অবৈধ ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এমন পরিস্থিতিতে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তামিমা তাম্মীর বিয়ে অবৈধ বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তামিমা ও রাকিবের বিয়ে হয়। তাদের আট বছরের একটি মেয়েও রয়েছে। তামিমা পেশায় একজন কেবিন ক্রু। চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি তামিমা ও ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা রাকিবের নজরে আসে। পরে পত্রপত্রিকায় তিনি ঘটনার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারেন।

পূর্ববর্তী খবরবিএনপির নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতায় আসার সুযোগ নেই- ঈশ্বরদীতে আব্দুর রহমান
পরবর্তী খবরজবির কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ রক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

Leave a Reply