পদ্মার তীব্র ভাঙ্গনের কবলে ইউনিয়ন পরিষদ

রাশেদুল হক নয়ন, বাঘা(রাজশাহী)প্রতিনিধি।

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পদ্মার চরের মাঝে চকরাজাপুর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় ও গ্রাম রক্ষার জন্য জিও ব্যাগ ফেলেও শেষ রক্ষা হলো না চকরাজাপুর ইউপির। বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) জানতে পারা যায় ইউনিয়ন পরিষদের মালামাল ও কালিদাসখালী গ্রামে বসবাসকারীরা চেয়ারম্যানের ভাড়িঘর ভেঙে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে। গত ২ সপ্তাহ ধরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষে জিও ব্যাগ ফেলেও শেষ রক্ষা চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।

জানা যায়, পদ্মায় আবারও পানি বাড়তে থাকায় উপজেলার চকরাজাপুর ইউনিয়নের কালিদাসখালী এলাকায় ভাঙনের তীব্রতা বেড়ে যায়। এ বিষয়টি চকরাজাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল আযম পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব মো, শাহরিয়ার আলম এম পির মাধ্যমে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবগত করেন। রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ড ২১ আগস্ট থেকে ২শত মিটার এলাকায় জিও ব্যাগ ফেলে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় ও গ্রাম রক্ষা করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন। পানি উন্নয়ন বোর্ডের বিভাগীয় উপ-প্রকৌশলী সারোয়ার-ই-জাহান ২ সেপ্টেম্বর পদ্মার ভাঙন ও জিও ব্যাগ ফেলার পরিদর্শনও করেন।

চকরাজাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুল আযম বলেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর মাধ্যমে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবগত করেন। রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ড জিও ব্যাগ ফেলে গ্রাম রক্ষা করার চেষ্টা করছে। কিন্তু কোন কাজ হলো না। অবশেষে আমার নিজের বাড়ীসহ ইউনিয়ন পরিষদের ঘর ও মালামালও সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী বিভাগের শাখা কর্মকর্তা মাহাবুব রাসেল বলেন, বাঘার পদ্মা নদীর কালিদাসখালী এলাকায় ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বালুর ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলেও অবশেষে কোনো কাজ হলো না। গত ২ সপ্তাহে ২শত মিটার এলাকায় প্রায় সাড়ে ১৫ হাজার জিও ব্যাগ ফেলা হয়।

পূর্ববর্তী খবরঈশ্বরদীতে জেলা প্রশাসকের আশ্রয়ন প্রকল্প পরিদর্শন
পরবর্তী খবরবাঘায় পুকুর হতে যুবকের লাশ উদ্ধার

Leave a Reply