পাবনায় এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু!

পাবনার চাটমোহরে তানজিলা খাতুন (২০) নামের এক অন্তসত্ত্বা গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার (০১ মে) দিবাগত গভীর রাতের কোনো একসময়ে উপজেলার নিমাইচড়া ইউনিয়নের গৌরিপুর গ্রামে ওই গৃহবধূর স্বামীর নিজ বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে।

আজ রবিবার (০২ মে) সকালে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতল মর্গে প্রেরণ করেছে।

গৃহবধূ ওই গ্রামের মোমিনের স্ত্রী ও ফজলুর রহমানের পুত্রবধূ। তানজিলা খাতুন দুই মাসের অন্তসত্ত্বা ছিলো বলে জানা যায়।

এলাকাবাসী ও নিহতের পিতা আলম জানান, এক বছর পূর্বে চাটমোহর উপজেলার নিমাইচড়া ইউনিয়নের গৌরিপুর গ্রামের ফজলুর রহমানের পুত্র মোমিনের সাথে দেড় লাখ টাকা যৌতুক দাবিতে পারিবারিক ভাবে বিবাহ হয়।

অল্পদিনের মধ্যে মেয়ের পিতা যৌতুকের পাওনা পরিশোধ করে দেন এর পরও মোমিন মাঝে মাঝে তার স্ত্রী তানজিলাকে চাপ দিতো বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনতে।

প্রায় দুই মাস হলো ওই গৃহবধূর খাবার দাবারে অরুচি দেখা দেয় ও স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসায় সুস্থ্য হয়। তার স্বামী নিমাইচড়া গ্রামের এক মসজিদে ইমামতি করতেন এবং সেখানেই তিনি অবস্থান করতেন।

গ্রামের বাড়িতে স্ত্রীর কাছে তিনি খুবই কম আসতেন। এরই ধারাবাহিকতায় বেশ কয়েকদিন পর মোমিন গত শনিবার দিবাগত রাতে বাড়িতে আসে কিন্তু ওই দিনই রাতের কোনো এক সময় মোমিনের বিছানার পাশেই গৃহবধূ তানজিলা খাতুন মৃত্যুবরণ করেন।

নিহত গৃহবধূর পিতা আলম সাংবাদিকদের জানান, তার জামাই তার মেয়ের সাথে খারাপ আচারণ করত। তার মেয়ে সুস্থ ছিল বলেও দাবী করেন তিনি।

নিহত তানজিলার চাচা মোঃ সাইফুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, এটা স্বাভাবিক মৃত্যু নয়।

নিহত তানজিলার স্বামী মোমিন বলেন, রাতে একই বিছানায় ঘুমিয়ে ছিলাম কিন্তু রাত একটার দিকে হঠাৎ স্ত্রী তানজিলা একটা ঝাঁকুনি দিল বলে মনে হলো। তার পর শেষ রাতে দিকে জানতে পেরেছি যে, সে মৃত্যুবরণ করেছে।

নিহত গৃহবধূর বড় জা রিমা বলেন, তানজিলা দীর্ঘদন ধরে পেটের ব্যথায় ভুগতেছিলেন এবং দুই মাসের অন্তসত্ত্বা ছিলেন। সে কারণে ঠিক মত খেতে পারত না। তবে তার (তানজিলার) কোন চিকিৎসা পত্র দেখাতে পারেননি তিনি।

এ ব্যপারে নিমাইচড়া ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান খোকন বলেন, ঘটনাটি সর্ম্পকে তিনি জেনেছেন তবে কি কারণে তানজিলা মৃত্যুবরণ করেছেন তা তিনি অবগত নন।

এব্যপারে চাটমোহর থানার ওসি (তদন্ত) হাসান বাশির বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলেই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

পূর্ববর্তী খবরপাবনায় গণপরিবহন খুলে দেয়ার দাবিতে বিক্ষোভ!
পরবর্তী খবরঅতিরিক্ত ডিআইজি হলেন হারুন-অর-রশিদ

Leave a Reply