ফাহিম ও পাইলট যে কারণে হারলেন-জানালেন পাপন

দেশের প্রথিতযশা কোচ নাজমুল আবেদিন ফাহিম ও জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলট। ফাইল ছবি

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক পদে প্রথিতযশা কোচ নাজমুল আবেদিন ফাহিম ও জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলটের হার নিয়ে মুখ খুলেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

তিনি বলেন, ‘তারা (ফাহিম ও পাইলট) হঠাৎ করে নির্বাচনে নেমেছে, কোনো হোমওয়ার্ক ছাড়া। নির্বাচনে নামার আগে একটু হোমওয়ার্ক করা দরকার। আমার ধারণা ওরা সেটা করেনি বা করতে পারেনি। কাউন্সিলরদের কাছে যাওয়ার সময়ই বোধহয় সবাই পাননি। পাইলটও হুট করে দাঁড়িয়ে গেছে। যারা আট বছর ধরে কাজ করছে ওরা কি বসে ছিল? ওরাও তো নিশ্চয়ই কাজ করেছে যাতে পরের নির্বাচনে পাশ করে। প্রস্তুতি নিয়ে নির্বাচনে দাঁড়ালে আরও ভালো হতো। ‘

বৃহস্পতিবার বিসিবি সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ শেষে সংবাদ সম্মেলনে নাজমুল হাসান পাপন এসব কথা বলেন।

খালেদ মাসুদ পাইলট সম্পর্কে পাপন বলেন, পাইলটের তো সেকেন্ডারি প্রপোজালসহ তিনটি ভোট পাওয়ার কথা। ও তো ভোট পেয়েছে দুটি। তাহলে ওর সেকেন্ডারি প্রপোজাল গেল কোথায়?’

ক্যাটাগরি-২ অর্থাৎ ক্লাব ক্যাটাগরি থেকে নির্বাচনে অংশ নিয়ে ৫৭ ভোটের মধ্যে বর্তমান বিসিবি প্রধান পেয়েছেন ৫৩ ভোট। আগের দুই দফায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়া পাপন এবারই প্রথম সরাসরি ভোটে জিতে পরিচালক পদে নির্বাচিত হয়েছেন।

কাউন্সিলররা ভোটের মাধ্যমে মোট ২৩ জন পরিচালক নির্বাচন করেছেন, আর জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ থেকে মনোনয়ন পেয়ে বোর্ড পরিচালক হয়েছেন আহমেদ সাজ্জাদুল আলম ববি ও জালাল ইউনুস। পরে মোট ২৫ জন পরিচালকের ভোটে বোর্ড সভাপতি নির্বাচিত হন পাপন।

এর আগে ২০১২ সালে তৎকালীন বিসিবি প্রধান আ হ ম মুস্তফা কামাল পদত্যাগ করলে তার স্থলাভিষিক্ত হন পাপন। এরপর ২০১৩ ও ২০১৭ সালে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন তিনি। তবে এবার ১৫ প্রার্থীর সঙ্গে নির্বাচনে অংশ নিয়ে বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছেন পাপন।

পূর্ববর্তী খবরক্রিকেটে আসছে ফ্রি ডেলিভারি
পরবর্তী খবরবৃষ্টিপাতের আভাস

Leave a Reply