28 C
Dhaka
Friday, July 1, 2022

বশেমুরবিপ্রবিতে রোভার স্কাউটের সহযোগিতায়  নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত 

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি: বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, গোপালগঞ্জ  কর্তৃক আয়োজিত ও বশেমুরবিপ্রবি রোভার স্কাউট গ্রুপের সহযোগিতায়  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ( বশেমুরবিপ্রবি) একাডেমিক ভবনের  ১১৬ নং কক্ষে গত রবিবার, ১২ তারিখ ২০২২  “নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক সেমিনার, কুইজ ও রচনা প্রতিযোগিতা” অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জনাব ড. মোঃ রাজিউর রহমান, প্রক্টর ও ডিন, আইন অনুষদ; জনাব মোঃ মজনুর রশিদ, সম্পাদক, বশেমুরবিপ্রবি রোভার স্কাউট গ্রুপ ও সহকারী অধ্যাপক, সমাজবিজ্ঞান বিভাগ; জনাব মুন্নী খাতুন, নিরাপদ খাদ্য অফিসার, গোপালগঞ্জ।

এছাড়াও উপস্তিত ছিলেন, জনাব ড. মোঃ শরাফাত আলী, ছাত্র উপদেষ্টা ও সভাপতি, এফ.এম.বি বিভাগ; জনাব মোঃ আবুল কালাম আজাদ, সভাপতি, সমাজবিজ্ঞান বিভাগ; জনাব ড. মোছাঃ হালিমা খাতুন, সহযোগী অধ্যাপক, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ ও রোভার স্কাউট লিডার, বশেমুরবিপ্রবি রোভার স্কাউট গ্রুপ; জনাব মঈনুল ইসলাম, জেলা তথ্য অফিসার, গোপালগঞ্জ; জনাব শামীম আহমেদ, সহকারী পরিচালক, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, গোপালগঞ্জ; জনাব আরিফ হোসেন, কৃষি বিপণন কর্মকর্তা, কৃষি বিপণন অধিদপ্তর, গোপালগঞ্জ। 

উক্ত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন গোপালগঞ্জ জেলার নিরাপদ খাদ্য অফিসার জনাব মুন্নী খাতুন। তিনি তার বক্তব্যে নিরাপদ খাদ্য গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা, আত্ম-সচেতনতা বৃদ্ধি, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের কার্যক্রমসহ বর্তমানে সমাজে প্রচলিত কিছু ভ্রান্ত ধারণা নিয়ে আলোচনা করেন। 

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, “প্রত্যাশিত ব্যবহার ও উপযোগিতা অনুযায়ী মানুষের জন্য বিশুদ্ধ ও স্বাস্থ্যসম্মত আহার্য হচ্ছে নিরাপদ খাদ্য। সুস্বাস্থ্য নির্ভর করে আমাদের খাদ্যাভাসের উপর। প্রতিবছর অনিরাপদ খাদ্য গ্রহনের ফলে প্রত্যক্ষভাবে হাজার হাজার মানুষ রোগআক্রান্ত হচ্ছে। পরোক্ষভাবে উচ্চ রক্তচাপ, রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি, পিত্ত থলিতে পাথরের সৃষ্টি, বৃক্কে জটিলতা  সহ ক্যান্সারের মত রোগে অসংখ্য মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। সুতরাং সুস্বাস্থ্য গঠনে নিরাপদ খাদ্যের বিকল্প নেই।” 

পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয় রোভার স্কাউট গ্রুপ সম্পাদক জনাব মোঃ মজনুর রশিদ তার বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিরাপদ খাদ্য গ্রহণে সচেতনতা বৃদ্ধি ও করণীয় বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করেন৷ 

অতিথিদের বক্তব্য শেষে কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে কুইজ ও রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরণ করা হয়। 

রচনা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র রোভার উৎপল রায় বলেন,”আমি এই প্রথম কোনো রচনা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করি। রচনা লিখতে গিয়ে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে আমার অজানা অনেক জিনিস জানতে পারি। বিষয়টি আমার জন্য খুবই আনন্দের।”

প্রসঙ্গত “টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জনে নিরাপদ খাদ্য” বিষয়ে রচনা প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়।

পুরষ্কার বিতরনী শেষে মুক্ত আলোচনা ও অংশগ্রহণকারী সকলকে বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ ও ঔষধি গাছ বিতরণ করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

Leave a Reply

লেখক থেকে আরো