বেফাকের কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় পাসের হার ৭৪ শতাংশ

বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের (বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড) ৪৪তম কেন্দ্রীয় পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৭৪.০৪ শতাংশ। পাস করা শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছাত্র ৮২.১০ শতাংশ এবং ছাত্রী ৫৭.২১ শতাংশ।

সোমবার (১০ মে) যাত্রাবাড়ী, কাজলার পাড় এলাকার নিজস্ব কার্যালয়ে বেফাকের ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মুফতি আমিনুল হক বোর্ডের পক্ষ থেকে বেফাকের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও আল-হাইয়াতুল উলয়ার চেয়ারম্যান আল্লামা মাহমুদুল হাসানের হাতে ফলাফলের অনুলিপি হস্তান্তর করেন এবং অনুমতিক্রমে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন।

এসময় বেফাক সভাপতি আল্লামা মাহমুদুল হাসান বলেন, কওমি মাদরাসার পরীক্ষার্থীরা সুষ্ঠু পরিবেশে পরীক্ষা দিয়ে ফলাফলে সফলতার নজির স্থাপন করেছে। এরাই যোগ্য আলেম হয়ে জাতির সামনে ইসলামের শান্তির বাণী তুলে ধরবে। তারাই আমাদের ভবিষ্যৎ।

এ সময় বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক বলেন, কেন্দ্রীয় পরীক্ষার ফল প্রকাশের বিশাল এ কর্মকাণ্ডের বিভিন্ন স্তর- নিবন্ধন, পরীক্ষার্থী অন্তর্ভুক্তি, প্রশ্নপত্র তৈরি ও কেন্দ্রগুলোতে পাঠানো, পরীক্ষা নেয়া, খাতা দেখা, খাতা নিরীক্ষণ, ফলাফল তৈরি ইত্যাদি কাজে আন্তরিক সহায়তার জন্য মাদরাসাগুলো, বোর্ডের দায়িত্বশীলরা এবং নেগরান, পরীক্ষক, নিরীক্ষক ও অফিসকর্মীসহ সংশ্লিষ্ট সবার অক্লান্ত শ্রম প্রদান ও ঐকান্তিকতার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। সংশ্লিষ্টদের চেষ্টার ফলেই শিক্ষার্থীরা যথাসময়ে তাদের ফলাফল হাতে পেয়েছে।

বেফাকের ৪৪তম এ কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় স্টার মার্ক পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে ২৭ হাজার ৫২ জন। প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হয়েছে ৩১ হাজার ৪৬৪ জন। মোট উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ লাখ ৪৯ হাজার ২৩৩ জন। পরীক্ষার ফলাফলের যাবতীয় তথ্য বেফাকের নিজস্ব ফলাফল সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছে।

গত ১৮ মার্চ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত সারাদেশে একযোগে ৪৮০টি পুরুষ ও ৭০৬টি নারী কেন্দ্রে মোট ছয়টি স্তরে অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের (বেফাক) ৪৪তম কেন্দ্রীয় পরীক্ষা। অংশগ্রহণ করে মোট দুই লাখ আট হাজার ৯৯৪ জন পরীক্ষার্থী। এতে ছাত্র সংখ্যা ছিল এক লাখ তিন হাজার ৪৯২ জন এবং ছাত্রী ছিল এক লাখ পাঁচ হাজার ৫০২ জন।

ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক মাওলানা মুহম্মাদ যুবায়েরের পরিচালনায় ফলাফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- বেফাকের সহ-সভাপতি মাওলানা ছফিউল্লাহ, আমেলা সদস্য মুফতি নেয়ামতুল্লা-আল-ফরিদি, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ কমিটির সদস্য মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা সিরাজুল ইসলাম, মাওলানা মকবুল হোসাইন, মাওলানা আহমাদ আলী, মাওলানা নাসিরুদ্দিন এবং বিভিন্ন মাদরাসার মুহতামিমরা, পরীক্ষা বিভাগের দায়িত্বশীল ও কর্মীরা।

সূত্র:- জাগো নিউজ

পূর্ববর্তী খবরঈশ্বরদীতে মাদক ব্যাবসায়ী আটক; ৩৫ কেজি গাঁজা উদ্ধার
পরবর্তী খবরপাবনায় বজ্রপাতে ২ জনের মৃত্যু!

Leave a Reply