26 C
Dhaka
Saturday, November 26, 2022

মফস্বল সাংবাদিকরা ভুগছে হতাশা আর বিষন্নতায়

সমাজের দর্পন, জাতির বিবেক, দেশের চতুর্থ স্তম্ভ হলো সাংবাদিক। যা আজ বর্তমানে চরম বিষন্নতা ভুগছে। সেই সাথে আরো বেশি হতাশা ও বিষন্নতায় ভুগছে মফস্বলে কর্মরত বিভিন্ন গনমাধ্যমের এর সাংবাদিকরা।

গবেষণায় উঠে আসে, সাংবাদিকতায় নানামুখী চাপ, একের পর এক সাংবাদিক নির্যাতন, পেশাগত মান মর্যাদা এর অন্যতম কারন। সাংবাদিকতায় হতাশা ও বিষন্নতার কারণে মফস্বলে অনেক মেধাবী সাংবাদিক কিছুদিন সাংবাদিকতা করার পর পেশা পরিবর্তন করেন।

বাংলাদেশের ৪২.৯% সাংবাদিক তাদের পেশা নিয়ে বিষণ্ণতায় ভুগছেন। এ ছাড়া ৭১.৭% সাংবাদিক তাদের পেশা পরিবর্তনের কথাও ভাবছেন। 

সম্প্রতি শীর্ষক এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। 

গবেষণা প্রতিবেদনটি যুক্তরাষ্ট্রের গবেষণা সংস্থা আইজিআই গ্লোবালের “হ্যান্ডবুক অব রিসার্চ ইন ডিসক্রিমিনেশন, জেন্ডার ডিসপ্যারিটি অ্যান্ড সেইফটি রিস্ক ইন জার্নালিজম” শীর্ষক গ্রন্থে প্রকাশিত হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের ৪২.৯% সাংবাদিক তাদের পেশা নিয়ে বিষণ্ণতায় ভুগছেন। বিষণ্ণতায় ভোগা ৪২.৯% সাংবাদিকের মধ্যে ৪৮.৪৮% পুরুষ এবং ৪১.৭৭% নারী। আর পেশাগত হতাশার কারণেই সাংবাদিকতা ছেড়ে অন্য পেশায় যেতে চান ৭১.৭% সাংবাদিক।  

গবেষণায় আরো বলা হয়, পেশাগত অনিশ্চয়তাই সাংবাদিকতা বিমূখতার প্রধান কারণ। কেননা, প্রায় ৮৫% সাংবাদিকই চাকরির অনিশ্চয়তায় ভোগেন। হতাশার আরও কারণের মধ্যে রয়েছে, সময়মতো গনমাধ্যমে পদোন্নতি না পাওয়া, কম বেতন পাওয়া, সাংবাদিক নির্যাতন এবং অতিরিক্ত কাজের চাপ।

এদিকে, সাব-এডিটর বা কপি এডিটরদের তুলনায় বেশি বিষণ্ণতায় ভুগছেন রিপোর্টাররা। বিষণ্ণতার হার রিপোর্টার ৪৪.৩২%, কপি এডিটরের ৩৪% এবং নিউজ এডিটরের বিষণ্ণতার হার ২৮.৫৭%।

গবেষণায় আরও উঠে আসে, নানামুখী সাংবাদিক নির্যাতন, সাংবাদিক সংগঠনের অসহযোগিতা,পেশাগত বিভিন্ন চাপ ও হতাশার কারণে অনেক মেধাবী সাংবাদিক কিছুদিন সাংবাদিকতা করার পর পেশা পরিবর্তন করেন। 

সাংবাদিকদের মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়টি অতীব গুরুত্বপূর্ণ। তবে এ নিয়ে দেশে সচেতনতার মাত্রা খুবই কম। সাংবাদিকতা পেশা ও সাংবাদিকদের জীবনমান উন্নয়ন প্রশ্নে কর্মক্ষেত্রে তাদের মানসিক চাপ ও স্বাস্থ্যের বিষয়টি অবশ্যই গণমাধ্যম বা সাংবাদিক সংগঠনগুলোকে গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা উচিৎ।

উজ্জল হোসেন প্রধান, গণমাধ্যম ও মানবাধিকার কর্মী।

(বিঃ দ্রঃ সত্যের সকালের সম্পাদকীয় নীতিমালার সঙ্গে লেখকের মতামতের মিল নাও থাকতে পারে। প্রকাশিত লেখাটির আইনগত, মতামত বা বিশ্লেষণের দায়ভার সম্পূর্ণরূপে লেখকের, সত্যের সকাল কর্তৃপক্ষের নয়। লেখকের নিজস্ব মতামতের কোনো প্রকার দায়ভার সত্যের সকাল নিবে না)

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

Leave a Reply

লেখক থেকে আরো