মেয়র আব্বাসকে আ.লীগ থেকে অব্যাহতি

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে দলীয় পদ হারাচ্ছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আব্বাস আলী। 

বুধবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে দলীয় কার্যালয়ে জরুরি বৈঠকে বসেন উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা। সেখানেই দলীয় পদ থেকে মেয়র আব্বাসকে অপসারণের সিদ্ধান্ত নেয় পবা উপজেলা আওয়ামী লীগ।

আব্বাস আলী গত নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে জয়লাভ করে দ্বিতীয় মেয়াদে মেয়র হন। এর আগের দফায়ও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন তিনি।

মেয়র আব্বাসকে দলীয় পদ থেকে অপসারণের সিদ্ধান্তের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলী।

তিনি জানান, উদ্ভুত পরিস্থিতিতে তারা বিকেলে জরুরি বৈঠকে বসেন। ওই বৈঠকে তিনি সভাপতিত্ব করেন। শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে সেখানে আব্বাস আলীকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

ইয়াসিন আলী আরও জানান, আব্বাস আলীকে পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার পাশাপাশি কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। আগামী তিন দিনের মধ্যে তিনি নোটিশের জবাব দেবেন। জবাব আসার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নিতে বিষয়টি তারা কেন্দ্রে পাঠাবেন।

এদিকে, মেয়র আব্বাস আলী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। তার এই ঘটনায় শুক্রবার জরুরি বৈঠক ডেকেছে জেলা আওয়ামী লীগ। বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও বাগমারা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার।

তিনি বলেন, শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) তারা জেলায় এনিয়ে জরুরি সভা করবেন। সেখানে মেয়র আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে কঠোর সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রে সুপারিশ পাঠানো হবে।

সোমবার (২২ নভেম্বর) রাতে মেয়র আব্বাস আলীর কথোপকথনের একটি অডিও ভাইরাল হয়। ১ মিনিট ৫১ সেকেন্ডের অডিও ক্লিপটিতে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল বানালে ‘পাপ হবে’ এমন কথাও বলতে শোনা গেছে মেয়র আব্বাস আলীকে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠকের শেষের দিকের আলোচনার কিছু অংশের রেকর্ড এটি। গত আগস্টের মাঝিামাঝিতে নিজ দফতরে ব্যবসায়ীদের নিয়ে এই বৈঠক করেন মেয়র। এই ক্লিপটি নিয়ে রাজশাহীতে বইছে সমালোচনার ঝড়।

এই ঘটনায় মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) দিবাগত রাতে পৌর মেয়র আব্বাস আলীর নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তিনটি অভিযোগ দাখিল করেছেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের তিন কাউন্সিলর। মেয়র আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ তদন্ত করে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জনিয়েছেন নগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস।

এদিকে, বুধবার (২৪ নভেম্বর) দিনভর মেয়র আব্বাস আলীর শাস্তির দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিতে হয়েছে রাজশাহী।

উৎসDhaka Post
পূর্ববর্তী খবরবঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নিয়ে মন্তব্য, মেয়রের নামে থানায় অভিযোগ
পরবর্তী খবরপরিবহন প্রশাসনের অব্যবস্থাপনায় দূর্ভোগে যবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা

Leave a Reply