রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ও সংবিধানে বিসমিল্লাহ থাকবে

রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল বা সংবিধান থেকে বিসমিল্লাহ তুলে দেয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই আওয়ামী লীগের। এ নিয়ে সংসদে কোনো বিল তুলবে না ক্ষমতাসীনরা। দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা জানান, সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে সব ধর্মের অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। এ নিয়ে অহেতুক বিতর্ক সৃষ্টির সুযোগ নেই।

রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম নিয়ে সম্প্রতি তথ্য প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্যের পর সমালোচনা ওঠে সারা দেশে।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা বলছেন, ২০১১ সালে পঞ্চদশ সংশোধনীর আগে সংসদ উপনেতা সাজেদা চৌধুরীর নেতৃত্বে ১৫ সদস্যের কমিটি সব শ্রেণি-পেশার মানুষের সাথে কথা বলে। ২৭টি বৈঠক শেষে ২০১১ সালের ৮ই জুন কমিটি সংসদে প্রতিবেদন পেশ করে।

এর ভিত্তিতে সংবিধানের পঞ্চম ও অষ্টম সংশোধনীতে সন্নিবেশিত বিসমিল্লাহির রাহমানীর রাহিম ও রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বহাল রাখে সংসদ। আওয়ামী লীগ নেতাদের মতে, পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে সংবিধানে ধর্মনিরপেক্ষতা ও ধর্মীয় স্বাধীনতা পুনর্বহাল করা হয়েছে।

নেতাদের মতে, রাষ্ট্রধর্ম নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের মন্ত্রীদের বক্তব্য একান্তই তাদের ব্যক্তিগত। এর সঙ্গে দলের কোনো সম্পর্ক নেই। কেননা এটি মিমাংসিত বিষয়।

আওয়ামী লীগ নেতাদের মত, ভোটের রাজনীতিতে ধর্মকে ব্যবহার করতে ইসলাম ধর্মকে সংবিধানে সন্নিবেশিত করা হলেও সংখ্যাগরিষ্ঠের অনুভূতির কারণে আওয়ামী লীগ তাতে সায় দিয়েছে।

পূর্ববর্তী খবরপাবনা জেলায় ইউপি নির্বাচনে আ’লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা
পরবর্তী খবরআ’লীগের মনোনয়ন বোর্ডের মুলতুবি সভা চলছে

1 মন্তব্য

  1. aftar commet

Leave a Reply