লকডাউনে ববি শিক্ষার্থীর উদ্যোগে প্রতিদিন শতাধিক মানুষের মধ্যে খাবার বিতরণ

আয়শা সিদ্দিকা উর্মি, ববি প্রতিনিধি:-করোনা মহামারির অশুভ থাবায় বিপর্যস্ত জনজীবন। এই লকডাউনে উচ্চবিত্তদের কোনো ধরনের সমস্যা না থাকলেও, ভালো নেই অসহায় নিম্ন আয়ের মানুষেরা। কখনো খেয়ে আবার কখনো না খেয়েই দিন পার করতে হয় তাদের।এসব মানুষের মধ্যে একটু স্বস্তির আমেজ ছড়িয়ে দিতে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ও অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান “বিখ্যাত পণ্য সম্ভার”-এর স্বত্বাধিকারী গাজী হাদিউজ্জামান। তার উদ্যোগে ২০ টি অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান-এর প্রায় শতাধিক মানুষের সহযোগিতায় প্রতিদিন ১০০ জন অসহায় মানুষের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়।

লকডাউনে ববি শিক্ষার্থীর উদ্যোগে প্রতিদিন শতাধিক মানুষের মধ্যে খাবার বিতরণ

গত ৩রা জুলাই বরিশালের দক্ষিণ আলেকান্দা সড়কে বসবাসরত মানুষের মাঝে খাবার বিতরণের মাধ্যমে এই কার্যক্রম শুরু হয়।প্রতিদিন নগরীর ভিন্ন ভিন্ন স্থানে খাবার বিতরণ করা হয়। এছাড়াও ৫ জুলাই থেকে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগী এবং তাদের স্বজনদের মধ্যেও প্রতিদিন খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। জানা যায়,চলমান লকডাউন শেষ না হওয়া পর্যন্ত তারা এই কার্যক্রম চালু রাখবেন।

খাদ্য বিতরণ কর্মসূচির একজন সদস্য আলামিন হোসাইন বলেন, “লকডাউনের কারনে শহরের অসহায়-দরিদ্র মানুষ এবং সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা বিপাকে পড়েছে। তাদের না খেয়ে দিন কাটাতে হচ্ছে। এছাড়া বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে থাকা হোটেলগুলো কয়েকদিন বন্ধ থাকায় রোগীদের সাথে থাকা স্বজনরা বিপাকে পড়েন। এই সকল বিপদে পড়া মানুষের পাশে আমরা বিনামূল্যে খাবার পরিবেশন করতে পেরে বেশ আনন্দিত। আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টায় সকলের সহযোগিতা পেলে যতদিন লকডাউন থাকবে ততদিন আমরা কার্যক্রম চালিয়ে যাবো।’

বিখ্যাত পন্য সম্ভার এর প্রতিষ্ঠাতা-পরিচালক গাজী হাদিউজ্জামান বলেন, ‘মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য’ ‘এই গানের কথাগুলো আমাকে বার বার ভাবিয়ে তোলে। আমরা বেঁচে থাকতে কি করলাম? কতটুকু করেছি? এই চলমান মহামারিতে চারপাশে তাকালে দু’চোখে অন্ধকার দেখতে পাই। মানুষ ভালো নেই। পথশিশুরাও ভালো নেই। এই সকল মানুষের পেটের ক্ষুধা সহ্য না করতে পেরে আমাদের এই উদ্যোগ নেয়া। আমরা প্রতিদিন প্রায় ১০০ জন সুবিধাবঞ্চিত অসহায় মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করছি। আমাদের এই কাজের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে যুক্ত আছেন বরিশালের প্রায় ২০ জন তরুণ উদ্যোক্তা। যাদের কেউ আমাদের খাবার প্রস্তুত করে দিচ্ছেন আবার কেউ অর্থনৈতিক ভাবে সহযোগিতা করছেন। এভাবেই আমরা মানুষের পাশে থাকতে চাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক দিল-আফরোজ তানিয়া ম্যাম আমাদের সবসময় পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া আমাদের এই উদ্যোগ আরো সুন্দর করার জন্য বরিশালের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সবুজ বাংলা সোসাইটি’-এর একদল স্বেচ্ছাসেবক নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন। তবে আমরা বিশ্বাস করি সবাই যদি এই করুন পরিস্থিতিতে নিজ নিজ জায়গা থেকে এগিয়ে আসেন তাহলে অসহায়-দরিদ্র মানুষদের না খেয়ে থাকতে হবে না।

পূর্ববর্তী খবরচৌদ্দগ্রামে ভারত সীমান্তে বাংলাদেশী যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
পরবর্তী খবরRAB-5 এর অভিযানে রাজশাহী জেলার চারঘাট ও বাঘা হতে সংঘবদ্ধ “ইমো” হ্যাকিং চক্র আটক

Leave a Reply