শুদ্ধাচার পুরস্কার পাওয়ায় টিটিই মিঠুকে সমকাল সুহ্নদ সমাবেশের সংবর্ধনা!

পাবনাঃ- বাংলাদেশ রেলওয়ের শুদ্ধাচার পুরস্কার পেয়েছেন ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষক (টিটিই) মোঃ আব্দুল আলিম বিশ্বাস মিঠু। জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল অনুসরণ করে কর্মক্ষেত্রে দ্রুততার সঙ্গে ও সহজে সেবা দেওয়ার স্বীকৃতি হিসেবে তাঁকে এ পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে।

এই অসামান্য কৃতিত্ব অর্জন করায় গতকাল রোববার দুপুর ১২টায় সমকাল সুহ্নদ সমাবেশ ঈশ্বরদী শাখার পক্ষ থেকে আব্দুল আলিম মিঠুকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে।

শুদ্ধাচার পুরস্কার পাওয়ায় টিটিই মিঠুকে সমকাল সুহ্নদ সমাবেশের সংবর্ধনা!

সমকাল সুহ্নদ সমাবেশের সভাপতি আর.কে বাবুর সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ঈশ্বরদীর সিনিয়র সাংবাদিক খোন্দকার মাহাবুবুল হক দুদু, সাপ্তাহিক ঈশ্বরদীর সম্পাদক ও দৈনিক সমকাল প্রতিনিধি সেলিম সরদার, সিনিয়র সহ-সভাপতি খোন্দকার তৌফিক আলম সোহেল, সাধারণ সম্পাদক মাসুদুল ইসলাম, সংবর্ধিত টিটিই আব্দুল আলিম মিঠু প্রমূখ।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সাউথ ইষ্ট ব্যাংক ঈশ্বরদী শাখার কর্মকর্তা অরিন হক, সহ-সাধারণ সম্পাদক হিটু খোন্দকার, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক দুর্জয় ইসলাম লিমন, সদস্য আরিফুর রহমান প্রমুখ। অনুষ্ঠানে মিঠুকে মিষ্টি মুখ করা ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

উল্লেখ্য সংবর্ধিত টিটিই আব্দুল আলিম মিঠু সমকাল সুহ্নদ সমাবেশ ঈশ্বরদী শাখার সহ-সভাপতি।

রেল সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাজশাহীর মনিবাজারের নানকিং দরবার হলে বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের এক কর্মশালায় মিঠুর হাতে “শুদ্ধাচার পুরস্কার- ২০১৮ -২০১৯” সম্মাননা স্মারক ও সনদপত্র তুলে দেন রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন।

সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শুদ্ধাচার চর্চায় উৎসাহ দেওয়ার লক্ষ্যে “শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান নীতিমালা ২০১৭” প্রণয়ন করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

শুদ্ধাচার পুরস্কার হিসেবে বিজয়ীকে সনদপত্র ও এক মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ প্রদান করা হয়।

শুদ্ধাচার পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ গুণ হচ্ছে “পেশাগত জ্ঞান ও দক্ষতা, সততার নিদর্শন, নির্ভরযোগ্যতা ও কর্তব্যনিষ্ঠা, শৃঙ্খলাবোধ, সহকর্মীদের সঙ্গে আচরণ, সেবাগ্রহীতার সঙ্গে আচরণ, প্রতিষ্ঠানের বিধিবিধানের প্রতি শ্রদ্ধা, সমন্বয় ও নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে পারদর্শিতা, পেশাগত স্বাস্থ্য ও পরিবেশবিষয়ক সচেতনতা, উদ্ভাবনী চর্চার সক্ষমতা, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নে তৎপরতা, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার, উপস্থাপন দক্ষতা, ই-ফাইল ব্যবহারে আগ্রহ এবং অভিযোগ প্রতিকারে সহযোগিতা”। এসব গুণাবলি মিঠুর কর্মদক্ষতা ফুটে উঠেছে।

মিঠুর পৈতৃিক নিবাস পাবনার ঈশ্বরদী শহরের ফতেমোহাম্মদপুর এলাকায়। ২০১৪ সালের ২৩ এপ্রিল তিনি  টিকেট কালেক্টর (টিসি) পদে সৈয়দপুরে যোগদান করেন। এর আগে ২০১৭ সালে বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তার কার্যালয় ও ২০১৮ সালে বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক কার্যালয় পাকশী ও ২০১৯ সালে রাজশাহীতে প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা কার্যালয় থেকে তাঁকে সেরা টিটিই হিসেবে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

পূর্ববর্তী খবরমত প্রকাশ রোধে করা ডিজিটাল আইন বাতিলের দাবিতে নওগাঁয় মানববন্ধন
পরবর্তী খবরবিদেশী ট্রলার তল্লাশি করে ১৮ কোটি ৬১ লাখ টাকার কাপড় জব্দ করে কোস্টগার্ড পশ্চিম জোন

Leave a Reply