সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নির্যাতন ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে পাবনায় বিক্ষোভ!

আজ মঙ্গলবার (১৮ মে) দৈনিক প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে সচিবালয়ে আটকে রেখে হেনস্তা এবং পরে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের ও কারাগারে প্রেরণের প্রতিবাদে পাবনায় বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছেন গণমাধ্যমকর্মীরা।

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে এবং তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে তিন দিনের কর্মসুচি ঘোষণা করেছে পাবনা প্রেসক্লাব।

দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল শেষে এই কর্মসুচি ঘোষণা করেন পাবনা প্রেসক্লাব সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান। কর্মসুচির মধ্যে রয়েছে মঙ্গলবার বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ, বুধবার ১১টায় পাবনা প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন এবং বৃহস্পতিবার ১১টায় পাবনা প্রেসক্লাবের সামনে প্রতীকী অনশন।

দুপুর ২ টায় দিকে জেলা শহরে কর্মরত সাংবাদিকরা প্রেসক্লাবে সমবেত হন। এরপর বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মধ্য শহরের ট্রাফিক মোড়ে প্রতিবাদ সমাবেশে করে।

পাবনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন, মাছরাঙা টেলিভিশনের উত্তরাঞ্চলীয় ব্যুরো চীফ উৎপল মির্জা, পাবনা প্রেসক্লাবের কল্যাণ সম্পাদক সরোয়ার মোর্শেদ উল্লাস, পাবনা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কাবী মাহবুব মোর্শেদ, একুশে টেলিভিশনের পাবনা প্রতিনিধি রাজিউর রহমান, বাংলাদেশ টুডে স্টাফ রির্পোটার আব্দুল হামিদ খান প্রমুখ।

এই বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নেয় পাবনা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি শহীদুর রহমান শহীদ, সাবেক সভাপতি রুমী খন্দকার, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি পাবনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী সদস্য জহুরুল ইসলাম, প্রেসক্লাব সদস্য এস এম আলম, প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক ও ডেইলি স্টারের আহমেদ হুমায়ুন কবির তপু, প্রেসক্লাবের সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও দৈনিক করতোয়া প্রতিনিধি ইয়াদ আলী মৃধা পাভেল, এটিএন নিউজের রিজভী জয়, ডিবিসি নিউজের মির্জা পার্থ হাসান, একাত্তর টিভির মোস্তাফিজ রাসেল, গাজী টিভির ইমরোজ খন্দকার বাপ্পী, এশিয়ান টিভির শফিক আল কামালসহ স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক, ক্যামেরা পারসন।

বক্তারা বলেন, সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম দেশের স্বার্থে কাজ করেন। তিনিই দেশের মানুষের কাছে স্বাস্থ্যখাতের লাগাতার দূর্নীতি তুলে ধরেছেন। তাঁকে হেনস্থা করা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে আটকে রাখা মানে সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা ক্ষুন্ন করা। দেশের মানুষের তথ্য অধিকার খর্ব করা। ফলে পাবনায় কর্মরত সাংবাদিকরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দাবি করে। একই সঙ্গে সাংবাদিকের কলমকে জনগণের স্বার্থে ব্যবহারের জন্য রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করে। অবিলম্বে রোজিনা ইসলামকে মুক্তি না দেয়া হলে জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে আরো বৃহৎ কর্মসুচী দেয়া হবে।

সভাপতির বক্তব্যে এ বি এম ফজলুর রহমান বলেন, দূর্নীতি ও লুটপাটের কথা লিখতে গিয়ে একজন দেশ সেরা সাংবাদিককে এভাবে হয়রানী পুরো সাংবাদিক সমাজের হয়রানী। স্বাধীন দেশের জন্য এটা লজ্জার ঘটনা। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।

পূর্ববর্তী খবরনয় বছরের শিশু ধর্ষণ; গ্রেফতার এক
পরবর্তী খবরনিজ শিশু কন্যাকে ধর্ষনের অভিযোগে পিতা আটক

Leave a Reply