30 C
Dhaka
Thursday, September 29, 2022

সুবিধাবাদী বক্তব্য দেয়া থেকে ইউরোপকে বিরত থাকতে হবে: ইরান

ইরানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আমেরিকা ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের হস্তক্ষেপমূলক বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে তেহরান। ইরান বলেছে, সুযোগ পেলেই উদ্ভূত যেকোনো পরিস্থিতিকে নিজেদের স্বার্থ রক্ষার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা ইউরোপকে বন্ধ করতে।

ইরানে সম্প্রতি বাধ্যতামূলক হিজাব খুলে ফেলার অভিযোগে আটক তরুণী মাহসা আমিনি পুলিশি হেফাজতে অসুস্থ হন এবং হাসপাতালে ভর্তির পর মারা যান।আমিনির মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে আমরিকা, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ আরো কিছু দেশ ইরানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপমূলক বক্তব্য প্রদান করে। এসব দেশ দাবি করে, এ ঘটনায় ইরানে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়েছে।

পশ্চিমা দেশগুলোর এ ধরনের বক্তব্যে দুঃখ প্রকাশ করে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাসের কানয়ানি বলেছেন, যেসব দেশ বিশ্বব্যাপী যুদ্ধ ও সহিংসতা চাপিয়ে দিয়ে হাজার হাজার মানুষ হত্যা করেছে অন্য দেশকে মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে অভিযুক্ত করার অধিকার তাদের নেই। তিনি আরো বলেন, মার্কিন সরকার সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগ ও অর্থনৈতিক সন্ত্রাসবাদের মাধ্যমে ইরানি জনগণের মানবাধিকার সবচেয়ে বেশি লঙ্ঘন করেছে। কাজেই প্রমাণ-অযোগ্য অভিযোগ উত্থাপন করে আমেরিকা নিজেকে ইরানি জনগণের বন্ধু প্রমাণ করতে পারবে না।

সুবিধাবাদী বক্তব্য দেয়া থেকে ইউরোপকে বিরত থাকতে হবে: ইরান
ইরানে প্রকাশ্য স্থানে নারীকে হিজাব পরতে হয়; ইরানের নারী ফুটবল দলের সদস্যদের মাথায় হিজাব (সংগৃহীত ছবি)

প্রকাশ্য স্থানে হিজাব পরিধান করার আইনি বাধ্যবাধকতা অমান্য করায় গত মঙ্গলবার রাজধানী তেহরান থেকে ইরানের কুর্দিস্তান প্রদেশের অধিবাসী মাহসা আমিনিকে আটক করা হয়। পুলিশি হেফাজতে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে তেহরানের একটি হাসপাতাল ভর্তি করা হয় এবং এর তিন দিন পর হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

ইরানে মাহসা আমিনির মৃত্যুর ঘটনায় প্রকাশ্যে বাধ্যতামূলক হিজাব পরিধানের বিরোধীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছেন। তারা হিজাব পরিধানের বাধ্যতামূলক বিধান তুলে দেয়ার দাবিতে আন্দোলন গড়ে তোলার চেষ্টা করছেন। ইরানে ১৯৭৯ সালের ইসলামি বিপ্লবের পর ইসলামি শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার শুরু থেকে নারীদের প্রকাশ্যে হিজাব পরার বিধান বাধ্যতামূলক করা হয় যা ইসলাম বিরোধী শক্তিগুলো কখনই ভালো চোখে দেখেনি।

সূত্র: পার্সটুডে।

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

Leave a Reply

লেখক থেকে আরো