স্বাধীনতা বিরোধীরা দেশকে অস্থিতিশিল করার চেষ্টা করছে; মুজিবনগর দিবসে হানিফ

স্বাধিনতার ৫০ বছরের মাথায় দাড়িয়েও স্বাধীনতা বিরোধি শক্তির আস্ফালন দেখছি। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন নামে ধর্মকে ব্যবহার করে দেশকে অস্থিতিশিল করার চেষ্টা করছে তারা। যারা স্বাধীনতা যুদ্ধে বিরোধিতা করেছিল, যারা বাংলাদেশের সংবিধান মানতে চাইনা, যারা এখনো জাতীয় পতাকাকে সম্মান করতে চাইনা তারা স্বাধীন বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে থাকার অধিকার রাখে না। হেফাজত বলেন আর জামায়াত বলেন এরা সবই স্বাধীনতা বিরোধী। স্বাধিনতা বিরোধীদের বীজ অনেক গভিরে চলে গেছে। এজন্য স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসেও তাদের আস্ফালন দেখতে হচ্ছে।

স্বাধীনতা বিরোধীরা দেশকে অস্থিতিশিল করার চেষ্টা করছে; মুজিবনগর দিবসে হানিফ
ছবি- মুজিবনগর স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ করছেন মাহাবুবুল আলম হানিফ, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনসহ নেতা কর্মীরা।

স্বাধিনতার সুবর্নজয়ন্তিতে এসে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যখন দেশ উন্নয়নের পথে অগ্রসর হচ্ছে। ঠিক সেই সময় উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করার জন্য একাত্তরের পরাশিক্তরা বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের বিষ দাত উপড়ে ফেলে দিয়ে শেখ হানিার নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবো। শনিবার (১৭ এপ্রিল) ১১টার দিকে মুজিবনগরে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসে এক প্রেস বিফ্রিংএ এসব কথা বলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহাবুবুল আলম হানিফ এমপি। করোনার প্রাদুর্ভাবের কারনে সীমিত আয়োজনে মুজিবনগর দিবস পালন করা হয়েছে।

স্বাধীনতা বিরোধীরা দেশকে অস্থিতিশিল করার চেষ্টা করছে; মুজিবনগর দিবসে হানিফ
ছবি- মুজিবনগর স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ করছেন মাহাবুবুল আলম হানিফ, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনসহ নেতা কর্মীরা।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের পক্ষে সীমিত আয়োজনে অংশ নেন হানিফ। এসময় তিনি আরও বলেন, ১৭ এপ্রিল ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস বাঙালি জাতির কাছে একটি স্বরনীয় দিন। ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে রাষ্ট্রপতি করে সরকার গঠনের পর ১৭ এপ্রিল আনুষ্ঠিানিকভাবে এই মুজিবনগরে সেই সরকার শপথ গ্রহন করেন। সেই সরকারের বলিষ্ঠ নেতৃত্বে মাত্র ৯ মাসে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ লাভ করি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও

মেহেরপুর ১ আসনের সংসদ সদস্য ফরহাদ হোসেন, জাতীয় সংসদরে হুইপ জয়পুরহাট ১ আসনে এমপি আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, মেহেরপুর ২ আসনের সাংসদ সাহিদুজ্জামান খোকন, মেহেরপুর ২ এর সাবেক এমপি মকবুল হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক, জেলা প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খান, পুলিশ সুপার এস এম মুরাদ আলি, মেহেরপুর পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন প্রমুখ।

এর আগে সকাল ৬টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে মুজিবনগর দিবসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। পরে সকাল সাড় দশটার দিকে মাহাবুবুল আলম হানিফ এর নেতৃত্বে স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

ফয়সাল (মেহেরপুর) / সত্যের সকাল

পূর্ববর্তী খবরচট্টগ্রামের বাঁশখালীতে পুলিশ-শ্রমিক সংঘর্ষ, নিহত ৪
পরবর্তী খবরপাবনায় একই বাড়িতে দুইবার চুরি।

Leave a Reply