হাবিপ্রবি’র নতুন ভিসি প্রফেসর ড. মো. কামরুজ্জামান

আয়শা সিদ্দিকা, হাবিপ্রবি প্রতিনিধি:- হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) নতুন ভিসি হলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অর্থনীতি বিভাগের প্রফেসর ড. মো. কামরুজ্জামান। তিনি সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আবুল কাসেমের স্থলাভিষিক্ত হলেন।

বুধবার (৩০ জুন) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপসচিব মো: নূর-ই-আলম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়েছে- ভিসি হিসেবে তার নিয়োগের মেয়াদ চার বছর। তবে প্রযোজ্য ক্ষেত্রে তিনি নিয়মিত চাকরির বয়সপূর্তিতে মূল পদে প্রত্যাবর্তনপূর্বক অবসর গ্রহণের আনুষ্ঠানিকতা সম্পাদন শেষে আগের পদের মেয়াদের অবশিষ্ট সময় পূর্ণ করবেন। তিনি তার বর্তমান পদের সমপরিমাণ বেতন-ভাতাদি পাবেন। বিধি অনুযায়ী পদ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সুবিধা ভোগ করবেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে সার্বক্ষণিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবস্থান করতে হবে। এছাড়া রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজনে যে কোনো সময় এ নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে। জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর করতে বলা হয়েছে।

এর আগে গত ৩১ জানুয়ারি প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আবুল কাসেমের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর থেকে নতুন উপাচার্য নিয়োগ দেওয়ার আগে পর্যন্ত প্রায় সাড়ে চার মাস রুটিন ভিসির দায়িত্ব পালন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার।

ভিসি হিসাবে দায়িত্ব গ্রহণের পর অভিব্যক্তি জানতে চাইলে তিনি বলেন, “মহামান্য রাষ্ট্রপতি মহোদয় আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছেন তা সকলে সাথে নিয়ে বাস্তবায়নের সর্বাত্মক চেষ্টা করবো। হাবিপ্রবি বাংলাদেশের অন্যতম সুনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়। তাই আমি চাই এই সুনামকে ধরে রেখে বিশ্ববিদ্যালয়কে আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিতে। শিক্ষা ও গবেষণায় যাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানীত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা পিছিয়ে না পরে সে লক্ষ্যে কাজ করে যাবো। সর্বোপরি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আমি অবদান রাখতে চাই”।

শিক্ষার্থীদের সেশনজট ও অন্যান্য সমস্যা কিভাবে দ্রুত সমাধান করা যায় এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমি লকডাউন পর্যবেক্ষণ সাপেক্ষে ক্যাম্পাসে যাবো। আশা করি ক্যাম্পাসে গিয়ে সকল সমস্যা দেখে সমাধানের উপায় বের করবো। আমি প্রত্যাশা করি আমাকে সকলে এ ব্যাপারে সহায়তা করবে”।

উল্লেখ্য, হাবিপ্রবি’র নব নিযুক্ত ভিসি প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান ১লা ডিসেম্বর ১৯৬৮ সালে চট্টগ্রাম বিভাগের চাঁদপুর জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৯৩ সালে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন। এরপর ১৯৯৬ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর শেষে ২০০৯ সালে জাপানের নাগোয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি সম্পন্ন করেন।

প্রফেসর এম কামরুজ্জামান পেশা জীবনের শুরুতে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি ফাইন্যান্স বিভাগে লেকচারার হিসেবে শিক্ষকতা শুরু করেন। এরপর একই বিভাগে পরবর্তীতে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে অধ্যাপনা করেন।

সর্বশেষ তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি অর্থনীতি বিভাগে অধ্যাপক হিসেবে শিক্ষকতা করেছেন। একাডেমিক দায়িত্বের পাশাপাশি তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য, একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য, অর্থ কমিটির সদস্য, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কমিটির সদস্য সচিব, বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন), সহযোগী পরিচালক (গবেষণা) হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান গবেষণাতেও ব্যাপক ভূমিকা রাখেন। তিনি ১৯৯৫ থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটে বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশে গম উৎপাদনে প্রযুক্তিগত দক্ষতা প্রকল্পে প্রধান বৈজ্ঞানিক পর্যবেক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

আয়শা সিদ্দিকা, হাবিপ্রবি প্রতিনিধি।

পূর্ববর্তী খবরচীন পরীক্ষিত বন্ধু, মার্কিন চাপে কাজ হবে না: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী
পরবর্তী খবরচারঘাটে বাড়ছে সংক্রমণ , ফার্মেসিতে জ্বর সর্দির ওষুধের সংকট

Leave a Reply